ইতিহাসের উপাদান: লিখিত উপাদান ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন

সব সময় সত্য ঘটনা ও তথ্য-প্রমাণকে নির্ভর করে প্রকৃত ইতিহাস রচিত হয়। আর যে সব সত্য ঘটনা ও তথ্য-প্রমাণের উপর ভিত্তি করে প্রকৃত ইতিহাস প্রতিষ্ঠিত করা যায়, সে সবকেই ইতিহাসের উপাদান (elements of history) বলে। আবার ইতিহাসের উপাদানকে ২টি শ্রেণিতে ভাগ করা হয়। যেমন-

১. লিখিত উপাদান (written elements) ও

২. অলিখিত উপাদান বা প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন  (unwritten elements or archaeological heritage)

১. লিখিত উপাদান: পৃথিবীতে মানব সভ্যতার সাথে সম্পর্কিত অতীতকালের বিভিন্ন সত্য ঘটনা ও কর্মকাণ্ডের ধারাবাহিক লিখিত বিবরণকে ইতিহাসের লিখিত উপাদান বলা হয়। দেশি-বিদেশি সাহিত্য, দলিলপত্র, দেশি-বিদেশি পর্যটকদের বিবরণ প্রভৃতি হল ইতিহাসের লিখিত উপাদান। উদাহরণস্বরূপ- সাহিত্যের রূপকথা, কিংবদন্তি ও গল্পকাহিনি; বেদ; কৌটিল্যের ‘অর্থশাস্ত্র’; আবুল ফজলের ‘আইন-ই-আকবরী’; সরকারি নথি ও চিঠিপত্র; খ্রিস্টীয় ৫ম থেকে ৭ম শতকে বাংলায় আগত চীনা পরিব্রাজক, যেমন- ফা হিয়েন, হিউয়েন সাং ও ইৎসিং-এর লিখিত বিবরণ প্রভৃতি। এসব লিখিত বিবরণ থেকে প্রাচীনকালের সভ্যতা, সমাজ, ধর্ম, আচার-অনুষ্ঠান, অর্থনীতি, রাজনীতি প্রভৃতি সম্পর্কে অনেক তথ্য জানা যায়।

২. অলিখিত উপাদান বা প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন: যে সব উপাদান বা বস্তু থেকে অতীত কালের বিশেষ সময়, স্থান ও ব্যক্তি সম্পর্কে ঐতিহাসিক তথ্য পাওয়া যায়, সে সব উপাদান বা বস্তুকে ইতিহাসের অলিখিত উপাদান বা প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন বলা হয়। এসব উপাদানকে আবার ইতিহাসের বস্তুগত উপাদান বা প্রত্ননিদর্শনও বলা হয়। মূলত প্রত্ননিদর্শনগুলোই হল ইতিহাসের অলিখিত উপাদান। উদাহরণস্বরূপ- প্রাচীনকালের তৈজসপত্র, শিলালিপি, তাম্রলিপি, শিলালিপি, ধাতব মুদ্রা, স্থাপত্যিক নিদর্শন বা ইমারত প্রভৃতি। এসব প্রত্ননিদর্শনের বৈজ্ঞানিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও বিশ্লেষণ করে প্রাচীনকালের অধিবাসীদের সভ্যতা, ধর্ম, জীবনযাত্রা, রাজনীতি, অর্থনীতি, নগরায়ণ, নিত্যব্যবহার্য জিনিসপত্র, কৃষি উপকরণ প্রভৃতি সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়।

বিশ্বের বিভিন্ন প্রাচীন সভ্যতাসহ ভারত উপমহাদেশের সিন্ধু সভ্যতা এবং বাংলাদেশের বগুড়া জেলার মহাস্থানগড় (প্রাচীন পুণ্ড্রনগর), নওগাঁ জেলার পাহাড়পুর মহাবিহার, কুমিল্লা জেলার শালবন বিহার প্রভৃতি প্রত্ননিদর্শন ইতিহাসের অলিখিত উপাদান হিসেবে উল্লেখ করা যায়। এরূপ প্রত্ননিদর্শনের আবিষ্কারের ফলে যে কোন জাতির ইতিহাসও বদলে যেতে পারে। যেমন- সম্প্রতি বাংলাদেশের নরসিংদী জেলার উয়ারী-বটেশ্বরের প্রত্ননিদর্শনের আবিষ্কার প্রমাণিত হয়েছে যে, বাংলাদেশে প্রায় ২৫০০ বছর আগেও উন্নত নগর সভ্যতা গড়ে উঠেছিল। [সংকলিত] [মো: শাহীন আলম]

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *