উদ্ভিদ ক্রমাগমন: এর ধরন ও শ্রেণিবিভাগ

উদ্ভিদ ক্রমাগমন সম্পর্কে ধারণা পাওয়ার আগে জানা দরকার যে, একটি জৈবিক সত্ত্বা হিসেবে উদ্ভিদের জন্ম, বৃদ্ধি ও মৃত্যু রয়েছে। এক বা একাধিক প্রজাতির উদ্ভিদ যে কোন একটি বিশেষ নিবাসে বা এলাকায় বহুকাল যাবৎ টিকে থাকতে পারে না। পরে যে কোন প্রাকৃতিক কারণে উদ্ভিদের মৃত্যু বা বিনাশ ঘটে। উদ্ভিদের বিনাশের স্থানে নতুন কোন উদ্ভিদ সম্প্রদায় ক্রমে জন্ম, বৃদ্ধি বা বিকাশ লাভ করে। উদ্ভিদের জন্ম, বৃদ্ধি ও মৃত্যুর বিষয়টি উদ্ভিদ বিজ্ঞান বা উদ্ভিদ ভূগোলে গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করা হয়। নিম্নে উদ্ভিদ ক্রমাগমনের সংজ্ঞা, পর্যায় ও শ্রেণিবিভাগ ‍তুলে ধরা হয়েছে।

উদ্ভিদ ক্রমাগমন [Plant Succession] বলতে সাধারণত উদ্ভিদবিহীন যে কোন এলাকায় কালক্রমে উদ্ভিদকূলের বা উদ্ভিদ সম্প্রদায়ের পর্যায়ক্রমে আবির্ভাব ও বিলোপের মাধ্যমে শেষ পর্যন্ত যে কোন একটি স্থায়ী উদ্ভিদ সম্প্রদায় সেখানে চূড়ান্ত বনভূমি পর্যায়ে আত্ম প্রকাশ করাকে বুঝায়। উদ্ভিদ ক্রমাগমনের এ ঘটমান পদ্ধতিকে উদ্ভিদ উত্তরণও বলে। প্রকৃতপক্ষে যে কোন উপযুক্ত পরিবেশে উদ্ভিদ ক্রমাগমনকালে শুরু থেকে পরিপূর্ণতা পর্যন্ত ক্রমান্বয়ে সংঘটিত উদ্ভিদ সম্প্রদায়ের পরিবর্তনশীল ও উন্নয়ন মুখী অবস্থা দেখতে পাওয়া যায়।

সাধারণত কোন একটি স্থানে একটি উদ্ভিদ সম্প্রদায় বেশি সময় ধরে অবস্থান করলে নানাবিধ ক্রিয়া, বিক্রিয়া ও প্রতিক্রিয়ার মাধ্যমে প্রাকৃতিক পরিবেশের বিশেষ করে মাটির প্রকৃতির পরিবর্তন সাধিত হয়। ফলে সে এলাকাটি বর্তমানের (প্রথম পর্যায়ের) উদ্ভিদের জন্য অনুপযোগী হয়ে পড়ে। কালক্রমে পরবর্তীতে সে স্থানটি অন্য এক প্রজাতির উদ্ভিদ সম্প্রদায়ের (দ্বিতীয় পর্যায়ের) আবাস স্থানে পরিণত হয়। বহুকাল পরে সে দ্বিতীয় পর্যায়ের উদ্ভিদ সম্প্রদায়ও বিলুপ্ত হয়। সেখানে অধিকতর উন্নত তৃতীয় পর্যায়ের উদ্ভিদ সম্প্রদায়ের আবির্ভাব ঘটে। এরূপে পর্যায়ক্রমে একই স্থানে উন্নত থেকে উন্নততর প্রজাতির উদ্ভিদ সম্প্রদায় আধিপত্য বিস্তার করে। ফলে কালক্রমে সেখানে পূর্ণ একটি উদ্ভিদ সম্প্রদায় নিয়ে চূড়ান্ত একটি বনভূমি প্রতিষ্ঠা লাভ করে।

উদ্ভিদ ক্রমাগমনের ধরন: ১৯১৬ সালে F. E. Clements ২ ধরনের উদ্ভিদ ক্রমাগমের কথা উল্লেখ করেন। আর বাস্তুসংস্থানে সাধারণত ২ ধরনের উদ্ভিদ ক্রমাগমন পরিলক্ষিত হয়। এগুলো হল:

(১) উদ্ভিদের প্রাথমিক ক্রমাগমন (primary plant succession) এবং 

(২) উদ্ভিদের গৌণ ক্রমাগমন (secondary plant succession)

(১) উদ্ভিদের প্রাথমিক ক্রমাগমন (primary plant succession): উদ্ভিদবিহীন যে কোন এলাকায় উপযুক্ত পরিবেশ পেলে প্রথম বারের মত ক্রমান্বয়ে উদ্ভিদের আগমনকে উদ্ভিদের প্রাথমিক ক্রমাগমন বলে। সাধারণত নতুন করে সৃষ্ট নদীর মধ্যবর্তী চর, সামুদ্রিক দ্বীপ, বদ্বীপ, উপকূলীয় এলাকা, নতুন পুকুর বা হ্রদ, লাভাজাত মাটিতে উদ্ভিদের প্রাথমিক ক্রমাগমন দেখতে পাওয়া যায়। উদ্ভিদের প্রাথমিক ক্রমাগমনকে আবার উদ্ভিদের প্রথম পর্যায়ের ক্রমাগমন বলা হয়। 

(২) উদ্ভিদের গৌণ ক্রমাগমন (secondary plant succession): উদ্ভিদবিশিষ্ট কোন একটি এলাকায় যে কোন প্রাকৃতিক বা মানব সৃষ্ট কারণে উদ্ভিদ সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস হয়ে গেলে সে এলাকাযটিতে নতুন করে ক্রমান্বয়ে উদ্ভিদের আগমন হওয়াকে উদ্ভিদের গৌণ ক্রমাগমন বলে। উদ্ভিদের গৌণ ক্রমাগমনকে আবার উদ্ভিদের দ্বিতীয় পর্যায়ের ক্রমাগমন বলা হয়।

উদ্ভিদ ক্রমাগমের শ্রেণিবিভাগ: পানির অবস্থান ও পরিমাণের ভিত্তিতে উদ্ভিদবিহীন এলাকায় উদ্ভিদের ক্রমাগমনকে ৩টি শ্রেণিতে বিভক্ত করা হয়।

(১) জলসিরি (hydrosere): জলাশয়ে উদ্ভিদের ক্রমাগত আগমন শুরু হওয়াকে জলসিরি বলে। জলসিরিকে আবার পানিসিরি বা পানি ক্রমাগমনও বলা হয়। 

(২) আর্দ্রজসিরি (wetsere): আর্দ্র নিবাসে উদ্ভিদের ক্রমাগত আগমন শুরু হওয়াকে আর্দ্রজসিরি বলে। আর্দ্রজসিরিকে আবার আর্দ্রজ ক্রমাগমনও বলা হয়।

(৩) মরুসিরি (xerosere): শুষ্ক ও মরুময় এলাকায় উদ্ভিদের ক্রমাগত আগমন শুরু হওয়াকে মরুসিরি বলে। মরুসিরিকে আবার শুষ্কজসিরি বা শুষ্কজ ক্রমাগমন বলে। মূলত: শুষ্কতা সহ্য করতে পারে এরূপ উদ্ভিদগুলো মরুপ্রায় ও মরু অঞ্চলে ক্রমে আগমন করে এবং বিকাশ লাভ করে। [সংকলিত]


উদ্ভিদ ক্রমাগমন বলতে কি বুঝায় ?


Add a Comment

Your email address will not be published.