জমির খতিয়ানের উৎপত্তি ও বিকাশ

জমির খতিয়ান (Ledger) হল এমন এক ধরনের বহি বা বই, যাতে ভূমি বা জমি সম্পর্কিত হিসাব ও তথ্য লিপিবদ্ধ থাকে। অর্থাৎ জমির মালিকানা স্বত্ব রক্ষা এবং রাজস্ব আদায়ের জন্য জরিপ বিভাগ (survey department) কর্তৃক প্রতিটি মৌজার জমির এক বা একাধিক মালিকের নাম, ঠিকানা, দাগ নম্বর, জমির পরিমাণ, জমির হিস্যা(অংশ), খাজনা প্রভৃতি বিবরণসহ জমি স্বত্ব প্রস্তুত করে রাখে, যা খতিয়ান নামে পরিচিত। নিম্নে জমির খতিয়ানের উৎপত্তি ও বিকাশ সম্পর্কে তুলে ধরা হল।

CS এর পূর্ণরূপ হল Cadastral Survey। Cadastral Survey এর আভিধানিক অর্থ তফসিলভুক্ত জরিপ। ব্রিটিশ আমলে (১৮৮৮ থেকে ১৯৪০) পরিচালিত এ ভূমি জরিপের ফলস্বরূপ তৈরি হয় সিএস (CS) খতিয়ান। সিএস (CS), ডিএস (DS) নামেও পরিচিত।

SA এর পূর্ণরূপ হল State Aquisition। State Aquisition এর আভিধানিক অর্থ রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহণ। পাকিস্তান আমলে (১৯৫৬ থেকে ১৯৬৩) রাষ্ট্রীয় অধিগ্রহণ ও প্রজাস্বত্ব আইনের চতুর্থ অধ্যায় এর ১৭ হতে ৩১ ধারার ফলস্বরূপ তৈরি হয় SA খতিয়ান। এ খতিয়ান PS এবং MR নামেও পরিচিত।

RS এর পূর্ণরূপ হল Revisional Survey। Revisional Survey এর আভিধানিক অর্থ সংশোধনী জরিপ। পাকিস্তান ও বাংলাদেশ আমলে (১৯৬৬ থেকে ১৯৮৪) পরিচালিত এ ভূমি জরিপের ফলস্বরূপ তৈরি হয় আরএস (RS) খতিয়ান।

BS এর পূর্ণরূপ হল Bangladesh Survey। Bangladesh Survey এর আভিধানিক অর্থ বাংলাদেশ জরিপ। বাংলাদেশ আমলে (১৯৮৪ থেকে বর্তমানে চলমান) পরিচালিত এ ভূমি জরিপের ফলস্বরূপ তৈরি হয় বিএস (BS) খতিয়ান।

জমির খতিয়ানের উৎপত্তি ও ক্রমবিকাশ ধারায় বাংলাদেশে বর্তমানে ৪ ধরনের খতিয়ান রয়েছে। এগুলো হল –

১. সিএস খতিয়ান (CS Ledger);
২. এসএ খতিয়ান (SA Ledger);
৩. আরএস খতিয়ান (RS Ledger); এবং
৪. বিএস খতিয়ান / সিটি জরিপ (BS Ledger / City Jarip) [সংকলিত] [মো: শাহীন আলম]


জমির খতিয়ানের উৎপত্তি ও বিকাশ


 

Add a Comment

Your email address will not be published.