জীববিজ্ঞান | Biology

জীববিজ্ঞান শব্দটির ইংরেজি প্রতিশব্দ হল Biology। এ Biology শব্দটি গ্রীক শব্দ Bios এবং Logos এর সহযোগে গঠিত হয়েছে। এখানে, Bois মানে হল জীবন এবং Logos মানে হল জ্ঞান। অর্থাৎ জীববিজ্ঞান (biology) মানে হল জীবন সম্পর্কিত জ্ঞান। 

আমরা জানি, পৃথিবীতে যাদের জীবন রয়েছে তারা হল জীব, আর যাদের জীবন নেই তারা হল জড়। জড়ের যথার্থ সন্নিবেশে জীব গঠিত হয়। তবে জীবের মধ্যে যে সব নতুন ধরনের বৈশিষ্ট্যের উৎপত্তি ঘটে, সে সব ধরন জীবের জড় গাঠনিক উপাদানগুলাের মধ্যে ছিল না।

জীববিজ্ঞানকে বলা হয় একটি প্রাচীন বিজ্ঞান। মনে করা হয় যে, চিকিৎসা ও কৃষিতে জীববিজ্ঞানের একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকার কারণে সভ্যতার একেবারে শুরু থেকে মিশর, গ্রিস, ভারতবর্ষ ও চীনসহ পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের সভ্যতায় জীব সম্পর্কিত চর্চা কমবেশি হয়েছিল। তখনকার জীব সম্পর্কিত চর্চাকে আধুনিক বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির বিচারে ঠিক পূর্ণাঙ্গ একটি বিজ্ঞান বলা যায় না। তবুও জীববিজ্ঞানের মত জ্ঞানের এ শাখাটির বিকাশের ক্ষেত্রে প্রাচীন সভ্যতায় জীব সম্পর্কিত চর্চা অপরিহার্য ভূমিকা পালন করেছিল।

পৃথিবীতে জীবের যে সাধারণ ২টি ধরন দেখা যায়, সেগুলাে হল – (ক) উদ্ভিদ এবং (খ) প্রাণী। বহুকাল যাবৎ পঠন-পাঠনের সুবিধার্থে জীববিজ্ঞানকে ২টি শাখায় ভাগ করা হয়েছে। এগুলো হল – (ক) উদ্ভিদবিজ্ঞান এবং (খ) প্রাণিবিজ্ঞান। এ রীতিটি এখনও পর্যন্ত চালু রয়েছে। তবে জীববিজ্ঞান আজ এতটাই প্রসার লাভ করেছে যে, কেবল ২টি শাখায় ভাগ করে এখন এর পঠন-পাঠন এবং গবেষণা চলে না। পৃথিবীতে এমন সব জীব আবিষ্কৃত হয়েছে, সে সব উদ্ভিদ কিংবা প্রাণী কোনটির মধ্যে পড়ে না। যেমন – ব্যাকটেরিয়া, ছত্রাক, প্রভৃতি। যার ফলে প্রয়ােজনের তাড়নায় জীববিজ্ঞান এখন বহু শাখা ও প্রশাখায় বিভক্ত করে পঠন-পাঠন এবং গবেষণা করা হয়। [সংকলিত]


What is Biology


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *