তথ্য উপস্থাপনের উপায়

তথ্য উপস্থাপন [Data Presentation] বলতে সাধারণত যে কোন বিষয়ের উপরে সংগৃহীত তথ্যমালা বা উপাত্তকে বিশেষ কোন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে লিপিবদ্ধ করে এক বা একাধিক ব্যক্তির সামনে তুলে ধরাকে বুঝায়। অর্থাৎ কোন গবেষণা বা অনুসন্ধানের জন্য সংগৃহীত তথ্যমালাকে সারণি (table) এবং লেখচিত্র (graph) সহ অন্য যে কোন উপায়ে উপস্থাপন করাকে তথ্য উপস্থাপন বা উপাত্ত উপস্থাপন বলে। তথ্য উপস্থাপন পরিসংখ্যান বিষয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ (step)। তথ্য উপস্থাপনের জন্য কতিপয় উপায় রয়েছে, যা নিম্নে তুলে ধরা হল:

তথ্য উপস্থাপনের উপায় [Way of Data Presentation]: তথ্য উপস্থাপনের জন্য প্রধানত ২টি উপায় প্রচলিত রয়েছে। এগুলো হল:

ক) পরিসংখ্যানিক সারণি (statistical tables) এবং

খ) পরিসংখ্যানিক লেখ বা লেখচিত্র (statistical graphs)। তথ্য উপস্থাপনের উপায় নিম্নে সংক্ষেপে তুলে ধরা হল:

ক) পরিসংখ্যানিক সারণি (statistical tables): কোন গবেষণা বা অনুসন্ধানের জন্য সংগৃহীত তথ্যসমূহ বা উপাত্ত থেকে কোন একটি বৈশিষ্ট্যের প্রেক্ষিতে সমজাতীয় তথ্য বা একককে একটি শ্রেণিতে সাজিয়ে লিপিবদ্ধ করে যে সারণি পাওয়া যায়, তাকে পরিসংখ্যানিক সারণি বলে। তথ্য বা উপাত্ত উপস্থাপনের জন্য ৩ ধরনের পরিসংখ্যানিক সারণি প্রচলিত রয়েছে। এগুলো হল:

ক.১. শ্রেণিবদ্ধকরণ (classification)

ক.২. সারণিবদ্ধকরণ (tabulation) এবং

ক.৩. গণসংখ্যা নিবেশন (frequency distribution)

খ) পরিসংখ্যানিক লেখ (statistical graphs): কোন গবেষণা বা অনুসন্ধানের জন্য সংগৃহীত তথ্যসমূহ থেকে ভিন্ন ভিন্ন বৈশিষ্ট্যে বা এককের তথ্যকে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে সারণিবদ্ধ করে সাজিয়ে বিভিন্ন ধরনের চিত্রে উপস্থাপন করাকে পরিসংখ্যানিক লেখ বা লেখচিত্র বলে। তথ্য বা উপাত্ত উপস্থাপনের জন্য বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের পরিসংখ্যানিক লেখ বা লেখচিত্র প্রচলিত রয়েছে। নিম্নে ৭ ধরনের পরিসংখ্যানিক লেখ বা লেখচিত্র উল্লেখ করা হল:

খ.১. আয়তলেখ (histogram)

খ.২. গণসংখ্যা বহুভুজ (frequency polygon)

খ.৩. গণসংখ্যা রেখা (frequency line)

খ.৪. অজিভ রেখা  (ogive curve )

খ.৫. স্তম্ভ (column)

খ.৬. দণ্ডচিত্র (bar diagram) এবং

খ.৭. বৃত্তাকার চিত্র (pie diagram) প্রভৃতি। [সংকলিত]


Way of Data Presentation


 

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *