বন্দর | Port

বন্দর [Port] বলতে সাধারণত পণ্যদ্রব্য বা মালামাল এবং যাত্রী উঠা-নামার সুবিধাবিশিষ্ট একটি নির্দিষ্ট স্থানকে বুঝায়। অবস্থান ও পরিবহণ ব্যবস্থা অনুযায়ী বন্দর বিভিন্ন প্রকারের হতে পারে। যেমন – নদী বন্দর, সমুদ্র বন্দর, স্থল বন্দর, বিমান বন্দর প্রভৃতি।

নদী বন্দর [River Port] হল পণ্যদ্রব্য এবং যাত্রী উঠা-নামার সুবিধাবিশিষ্ট নদীর তীরে গড়ে উঠা একটি নির্দিষ্ট স্থান। নদীপথে লঞ্চ ও স্টীমারযোগে পরিবাহিত যাত্রী এবং কার্গো জাহাজ ও ট্রলারযোগে পরিবাহিত পণ্যদ্রব্য নদী বন্দর দিয়ে উঠা-নামা করে। যেমন- বাংলাদেশের ঢাকা নদী বন্দর, যা বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে গড়ে উঠেছে।

সমুদ্র বন্দর [Sea Port] হল পণ্যদ্রব্য এবং যাত্রী উঠা-নামার সুবিধাবিশিষ্ট সমুদ্রের তীরে গড়ে উঠা একটি নির্দিষ্ট স্থান। সমুদ্রপথে পণ্যবাহী জাহাজযোগে পরিবাহিত পণ্যদ্রব্য সমুদ্র বন্দর দিয়ে উঠা-নামা করে। সমুদ্র বন্দরে জাহাজ নিরাপদে নোঙ্গর করার জন্য পোতাশ্রয় থাকে। উদাহরণস্বরূপ – চট্টগ্রাম বন্দর ও মংলা বন্দর নামে বাংলাদেশের ২টি সমুদ্র বন্দরের কথা উল্লেখ করা যায়। এক সময় সমুদ্রপথে জাহাজযোগে এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাত্রী পরিবাহিত হত। যদিও আধুনিককালে বিমানের ব্যবহার ব্যাপকভাবে প্রচলনের ফলে সমুদ্র বন্দর দিয়ে যাত্রী উঠা-নামা এক প্রকার কমে গেছে বললেই চলে। 

স্থল বন্দর [Land Port] হল সীমান্তবর্তী ২টি দেশের সীমানায় গড়ে উঠা পণ্যদ্রব্য এবং যাত্রী উঠা-নামার সুবিধাবিশিষ্ট একটি নির্দিষ্ট স্থান। উদাহরণস্বরূপ – বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী বাংলাদেশের বেনাপোল স্থল বন্দরের কথা বলা যায়। স্থল বন্দরের যাত্রী এবং পণ্যদ্রব্য বাস,  ট্রেন, ট্রাক,  লরী প্রভৃতি যোগে পরিবাহিত হয়।

বিমান বন্দর [Air Port] হল আকাশপথে বিমানযোগে পরিবাহিত পণ্যদ্রব্য এবং যাত্রী উঠা-নামার সুবিধা নিয়ে গড়ে উঠা একটি নির্দিষ্ট স্থান। উদাহরণস্বরূপ – বাংলাদেশের ঢাকায় অবস্থিত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কথা উল্লেখ করা যায়। বিমান বন্দরের যাত্রী ও পণ্যদ্রব্য পরিবহণের প্রধান বাহন হল বিমান। এছাড়া বিমান বন্দর থেকে দেশের অন্যত্র যাত্রী ও পণ্যদ্রব্য পরিবহণে মাইক্রো বাস, মিনি বাস, ট্রাক, লরী প্রভৃতি ব্যবহৃত হয়। [মো: শাহীন আলম]

Add a Comment

Your email address will not be published.