ভূতাত্ত্বিক সময় মাপনী | Geologic Time Scale

পৃথিবীর উৎপত্তি থেকে বর্তমান পর্যন্ত সম্পূর্ণ সময়কে ভূতাত্ত্বিক সময় বলা হয়। ভূতাত্ত্বিক সময় সীমা বা মাপনী (Geologic Time Scale) ব্যবহার করে ভূ-বিজ্ঞানীরা পৃথিবীর উৎপত্তি থেকে বর্তমান পর্যন্ত সংঘটিত সকল ঘটনা এবং তাদের মধ্যকার সম্পর্ক নিয়ে গবেষণা করেন। তেজস্ক্রিয়মিতি অনুযায়ী বয়স পরীক্ষা করে দেখা যায় যে, পৃথিবীর বয়স আনুমানিক ৪৫০ কোটি বছর। বিজ্ঞানীরা ভূতাত্ত্বিক সময়কে বিভিন্ন সীমায় বিভক্ত করেছেন। আবার প্রতিটি সীমার পৃথক পৃথক নাম দিয়েছেন। যেমন- সিনোজোয়িক মহাপর্যায়, কোয়াটার্নারি পর্যায়, হলোসিন মহাযুগ, ক্রিটেশিয়াস যুগ, প্যালিওজিন যুগ প্রভৃতি সময় সীমা। বিভিন্ন যুগান্তকারী ঘটনার আলোকে এ সীমাসমূহ নির্ণয় করা হয়। ভূতাত্ত্বিক সময়কে সামগ্রিকভাবে বলা হয় মহাকাল। মহাকল্প বা মহাকালকে (super-eon) আবার পর্যায়ক্রমে কাল বা কল্প (eon), মহাপর্যায় বা অতিকল্প (era), পর্যায় বা কল্প (period), মহাযুগ বা উপকল্প বা অবকল্প (epoch) এবং যুগ (age) নামক এককে বিভক্ত করা হয়েছে। 

Source: 2005 Encyclopaedia Britannica, inc


[Keywords: Geological Time Scale, GTS, Geochronology, Vutattik Time Scale, Vutattik  Samayakal, Vutattik Samayponji] 


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *