চর্যাপদের কবি ভুসুকুপা: পূর্ববঙ্গের মানুষ

ক. মনে করা হয়, ভুসুকুপা- অষ্টম থেকে এগার শতাব্দীর মাঝামাঝি সময়ের কবি ছিলেন।

খ. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ অনুমান করেন, ভুসুকুপা- পূর্ববঙ্গের মানুষ ছিলেন।

গ. ভুসুকুপা- সৌরাষ্ট্রের ক্ষত্রিয় রাজপুত্র ছিলেন।

ঘ. চর্যাপদ রচনার দিক দিয়ে ভুসুকুপা- দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন।

ঙ. ভুসুকুপা- ৮টি পদ রচনা করেন।

চ. ভুসুকুপা রচিত পদসমূহ হল- ৬, ২১, ২৩, ২৭, ৩০, ৪১, ৪৩ ও ৪৯ নম্বর পদ।

ছ. ভুসুকুপা- জীবনের প্রথমে অলস ছিলেন।

জ. ভুসুকু নামের অর্থ হল- ভু = ভুক্তি, সু = সুপ্তি ও কু = কুটিরে।

ঝ. ভুসুকুপা- কুটিরে অবস্থান করা ব্যতিত কিছু করতেন না, তাই তাকে ভুসুকু বলে ডাকা হত।

ঞ. ভুসুকুপার- ৪৯ নম্বর পদে পদ্মা (পঁউআ) খালের নাম, ‘বঙ্গাল দেশ’ ও ‘বঙ্গালী’র কথা আছে। তাই তাঁকে পূর্ববঙ্গের মানুষ মনে করা হয়।

ট. ভুসুকুপার রচিত পদে- বাঙালি জীবনের প্রতিচ্ছবি দেখা যায়।

ঠ. ভুসুকুপা রচিত উল্লেখযোগ্য পঙক্তি হল- অপণা মাংসেঁ হরিণা বৈরী।

ড. অপণা মাংসেঁ হরিণা বৈরী- ভুসুকুপা রচিত পদ: ৬ এর পঙক্তি।


[Keywords: Bengali Literature, Prachin Charyapad, Pracina Caryapad, Ancient Charzapad, Poet Vusukupa]


 

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *