উক্তি পরিবর্তন | Narration Change

উক্তি (narration) আভিধানিক অর্থ হল কথন। কোন কথকের বাক কর্মের নামই হল উক্তি।

উক্তি প্রধানত দুই প্রকার। যেমন –

১. প্রত্যক্ষ উক্তি (direct narration)

২. পরােক্ষ উক্তি (indirect narration)

১. প্রত্যক্ষ উক্তি (direct narration): যে বাক্যে বক্তার কথা অবিকল উদ্ধৃত হয়, তাকে প্রত্যক্ষ উক্তি বলে। যেমন –

রাতুল বলল, “কলমটা আমার প্রয়োজন।”

২. পরােক্ষ উক্তি (indirect narration): যে বাক্যে বক্তার উক্তি অন্যের জবানিতে রূপান্তরিতভাবে প্রকাশিত হয়, তাকে পরােক্ষ উক্তি বলা হয়। যেমন –

রাতুল বলল যে, কলমটা তার প্রয়োজন।

উক্তি (narration) পরিবর্তনের কতিপয় নিয়ম:

১. প্রত্যক্ষ উক্তিতে বক্তার বক্তব্যটুকু উদ্ধরণ চিহ্নের (“ ”) মাঝে থাকে। পরােক্ষ উক্তিতে উদ্ধরণ চিহ্ন লােপ পায়। প্রথমে উদ্ধরণ চিহ্নের স্থানে ‘যে’ এ সংযােজক অব্যয়টি ব্যবহার করতে হয়। বাক্যের সঙ্গতি রক্ষার জন্য উক্তিতে ব্যবহৃত বক্তার পুরুষের  (person) পরিবর্তন করতে হয়। যেমন –

প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “আমার মা বাড়ি নেই।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলল যে, তার মা বাড়ি ছিলেন না।

২. বাক্যের অর্থ সঙ্গতি রক্ষার জন্য সর্বনামের পরিবর্তন করতে হয়। যেমন –

প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “আমার বাবা আজই খুলনা যাচ্ছেন।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলল যে, তার বাবা সেদিনই খুলনা যাচ্ছিলেন।

৩. প্রত্যক্ষ উক্তির কালবাচক পদকে পরােক্ষ উক্তিতে অর্থ অনুসারী করতে হয়। যেমন –

প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “কাল তােমাদের বিদ‌্যালয় খোলা থাকবে।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলল যে, পরদিন আমাদের বিদ‌্যালয় খোলা থাকবে।

৪. প্রত্যক্ষ উক্তির বাক্যের সর্বনাম এবং কালসূচক শব্দের পরােক্ষ উক্তিতে নিম্নলিখিত পরিবর্তন সংঘটিত হয়।

প্রত্যক্ষ পরােক্ষ
এই সেই
ইহা  তাহা
সে
আজ সেদিন
আগামীকাল পরদিন
এখানে সেখানে
গতকাল আগেরদিন
এখন তখন
গতকল্য পূর্বদিন
ওখানে ঐখানে

৫. অর্থ সঙ্গতি রক্ষার জন্য পরােক্ষ উক্তিতে ক্রিয়াপদের পরিবর্তন হতে পারে। যেমন –

প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “আমি এখনই আসছি’।

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলল যে, সে তখনই যাচ্ছে।

৬. আশ্রিত খন্ড বাক্যের ক্রিয়ার কাল পরােক্ষ উক্তিতে সব সময় মূল বাক্যাংশের ক্রিয়ার কালের উপর নির্ভর করে না।

৬. ক) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলেছিল, “গ্রামে খুব গরম পড়েছে।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলেছিল যে, গ্রামে খুব গরম পড়েছিল।

অথবা, রাতুল বলেছিল গ্রামে খুব গরম পড়েছে।

৬. খ) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলেছিল, “আমি বিদ‌্যালয়ে যাচ্ছি।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলেছিল যে, সে বিদ‌্যালয়ে যাচ্ছে।

৬.গ) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “আমি খুলনা যাব।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল বলল যে, সে খুলনা যাবে।

প্রত্যক্ষ উক্তিতে কোন চিরন্তন সত্যের উদ্ধৃতি থাকলে পরােক্ষ উক্তিতে কালের কোন পরিবর্তন হয় না। যেমন –

৬.ঘ) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বললেন, “পৃথিবী গােলাকার।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুলবললেন যে, পৃথিবী গােলাকার।

৬.ঙ) প্রত্যক্ষ উক্তি: শিক্ষক বললেন, “চুম্বক লােহাকে আকর্ষণ করে।”

পরােক্ষ উক্তি : শিক্ষক বললেন যে, চুম্বক লােহাকে আকর্ষণ করে।

৭। প্রশ্নবােধক, অনুজ্ঞাসূচক ও আবেগসূচক প্রত্যক্ষ উক্তিকে পরােক্ষ উক্তিতে পরিবর্তন করতে হলে প্রধান খণ্ডবাক্যের ক্রিয়াকে ভাব অনুসারে পরিবর্তন করতে হয়। যেমন –

প্রশ্নবােধক বাক‌্য বা উক্তি (narration) পরিবর্তনের কতিপয় নিয়ম:

৭.ক) প্রত্যক্ষ উক্তি : শিক্ষক বললেন, “তােমরা কি ছুটি চাও?”

পরােক্ষ উক্তি : আমরা ছুটি চাই কি না, শিক্ষক তা জিজ্ঞাসা করলেন।

৭.খ) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “কবে নাগাদ তােমাদের ফল বের হবে?”

পরােক্ষ উক্তি : আমাদের ফল কবে নাগাদ বের হবে, বাবা তা জানতে চাইলেন।

অনুজ্ঞাসূচক বাক্য বা উক্তি (narration) পরিবর্তনের কতিপয় নিয়ম:

৭.গ) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “তােমরা আগামীকাল এসাে।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল তাদের পরদিন আসতে বলল।

অথবা, রাতুল তাদের পরদিন যেতে বলল।

৭.ঘ) প্রত্যক্ষ উক্তি : তিনি বললেন, “দয়া করে ভেতরে আসুন।”

পরােক্ষ উক্তি : তিনি (আমাকে) ভেতরে যেতে অনুরােধ করলেন।

আবেগসূচক বাক্য বা উক্তি (narration) পরিবর্তনের কতিপয় নিয়ম:

৭.ঙ) প্রত্যক্ষ উক্তি : রাতুল বলল, “বাঃ! পাখিটি তাে চমৎকার।”

পরােক্ষ উক্তি : রাতুল আনন্দের সাথে বলল যে, পাখিটি চমৎকার।

৭.চ) প্রত্যক্ষ উক্তি : ভিখারিনী বলল, “শীতে আমরা কতই না কষ্ট পাচ্ছি।”

পরােক্ষ উক্তি : ভিখারিনী দুঃখের সাথে বলল যে, তারা শীতে বড়ই কষ্ট পাচ্ছে। [সংকলিত]


সহায়িকা: বাংলা ভাষার ব‌্যাকরণ, নবম-দশম শ্রেণি, জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ‌্যপুস্তক বোর্ড, বাংলাদেশ।


Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *