সাংস্কৃতিক উদ্ভাবন | Cultural Innovation

সাংস্কৃতিক উদ্ভাবন [Cultural Innovation] বলতে বিদ্যমান সাংস্কৃতিক পরিবেশে নতুন কোন প্রলক্ষণ (উপাদান) সৃষ্টি বা সংযুক্ত হওয়াকে বুঝায়। এখানে প্রলক্ষণ বলতে নতুন কোন আচার-আচরণ, প্রথা, চিন্তাধারা, হাতিয়ার বা কৌশল ইত্যাদিকে বুঝানো হয়েছে। উদ্ভাবন যে কোন সংস্কৃতি বা সাংস্কৃতিক পরিবেশকে রূপান্তর করে। সাংস্কৃতিক পরিবেশ রূপান্তর ক্ষেত্রে প্রথম পর্যায় হল উদ্ভাবন। উদ্ভাবিত প্রলক্ষণটির অস্তিত্ব সংশ্লিষ্ট সাংস্কৃতিক পরিবেশে অতীতে থাকে না। অর্থা‍ৎ‍ উদ্ভাবিত প্রলক্ষণটি সংশ্লিষ্ট সাংস্কৃতিক পরিবেশে সম্পূর্ণ নতুনভাবে সৃষ্টি বা সংযুক্ত হয়। তবে বিদ্যমান কোন প্রলক্ষণের ব্যাপক পরিবর্তনের ফলে সাংস্কৃতিক পরিবেশে সম্পূর্ণ নতুনত্ব সৃষ্টি হতে পারে। এক্ষেত্রেও পরিবর্তিত প্রলক্ষণটি সাংস্কৃতিক পরিবেশে উদ্ভাবন হিসেবে বিবেচ্য হয়। উদাহরণস্বরূপ বলা যায় যে, সাধারণ গণনাযন্ত্রকে ব্যাপক পরিবর্তিত করে কম্পিউটারে রূপ দেয়া হয়েছে। তা সত্ত্বেও নিঃসন্দেহে কম্পিউটার একটি নতুন উদ্ভাবন হিসেবে পরিগণিত হয়। পরিকল্পিত বা শৃঙ্খলিত গবেষণার মাধ্যমে সংস্কৃতিতে বা সাংস্কৃতিক পরিবেশে নতুন উদ্ভাবন শুরু হতে পারে। আবার দৈবক্রমেও সংস্কৃতিতে নতুন কোন প্রলক্ষণের উদ্ভাবন হতে পারে। জানা যায় যে, রোগের চিকিৎসার অনেক ঔষধের আবিষ্কার দৈবক্রমে হয়েছে। [মো: শাহীন আলম]


সাংস্কৃতিক উদ্ভাবন বলতে কি বুঝায়?


সহায়িকা:
১।  বাকী, আবদুল, ভুবনকোষ, ২০১৩, সুজনেষু প্রকাশনী, ঢাকা, পৃষ্ঠা ৩১০


 

Add a Comment

Your email address will not be published.